pain, back pain

কোমর ব্যথা আপনার, কি করবেন?

রোগ-ব্যাধি

Your ads will be inserted here by

Easy Plugin for AdSense.

Please go to the plugin admin page to
Paste your ad code OR
Suppress this ad slot.

(হেলথপাটনার.কম): কোমড় ব্যথা এখন একটা কমন সমস্যা হয়ে দাড়িয়েছে। কোমড় ব্যথায় ভুগেন না এমন লোক  খুব কমই আছে। আমাদের কিছু অভ্যাস এবং খাদ্যের পুষ্টিগুণের অভাবে এ সমস্যাটি এখন প্রায়ই লোকের ক্ষেত্রে পরিলক্ষিত হচ্চে। এ সমস্যাটি দিন দিন প্রকোট আকার ধারণ করছে, বিভিন্ন কারণে এ ব্যথার সুত্রপাত হতে পারে। এ ব্যথাটি মেরুদন্ডের নিচে হাড়ের মধ্যবর্তী ডিস্কের স্থানে হয়ে থাকে। সাধারণত ৩০-৫০ বছর বয়সের লোকেরা কোমর ব্যথায় বেশি আক্রান্ত হয়।

আমাদের ব্যস্ত জীবনে নানান কাজের চাপে কিংবা বয়সের কারণে এখন  কোমড়ের ব্যথায় আক্রান্ত্র হয়ে থাকে অনেকে। মাঝে মাঝে এ ব্যথার তীব্রতা এত বেশি হয়ে থাকে যে,দৈনদিন কাজ করাও অসম্ভব হয়ে দাড়ায়। আমাদের অসচেনতা, লাইফস্টাইল, কায়িক পরিশ্রম না করা সহ বিভিন্ন বদ অভ্যাস কারণে আমরা নিজেরাই এ সমস্যার ভুক্তভোগি । আসুন কিচু বিষয় জেনে নিই কেন কোমড় ব্যথা হয়ে থাকে।কোমড় ব্যথা

হেলথ পাটনার আপনার জন্য আজ কিছু স্বাস্থ্য সচেনতা টিপস নিয়ে এসেছে,,,, কোমড় ব্যথার কারণ:

>>> শারীরিক পরিশ্রম না করা।

>>> কোন ধরণের ব্যায়াম না করা

>>>পেটের ভুড়ি বৃদ্ধি পাওয়া ও এ ব্যথার কারণ হতে পারে।

>>> গর্ভবতী মায়েদেরও কোমড় ব্যথা হয়ে থাকে।

>>> উচ্চতা অনুযায়ী ওজন ঠিক না থাকা।

>>> যে কোন ভাবে কোমড়ে ব্যথা বা আঘাত পেলে।

>>> হঠাৎ ভারী ব্স্তু উত্তোলন করা অথবা  হঠাৎ ঝুকে যাওয়া বা উঠাবসা করা।

>>> মহিলারা হাই হিল পরিধান করার কারণে ও অনেক সময় এ ব্যাথার উদ্ভব হতে পারে।

>>> জন্ম থেকে কোমড়ের হাড় বিকৃতি হলে এ ব্যথা হতে পারে।

>>> পায়ের গঠন অস্বাভাবিক হলেও অনেক সময় এ ব্যথার উদ্ভব হতে পারে।

>>> ভাঙ্গা রাস্তায় গাড়িতে যাতায়াত করলেও গাড়ির ঝাকুনিতে এ ব্যথা হয়ে থাকে।

এ অসহনীয় ব্যথা হলে খুব কস্ট হয়,, এখন আমরা যদি একটু সচেতন হই, এবং কিচু নিয়ম মেনে চলি তাহলে এ ব্যথা থেকে মুক্তি পেতে পারি। আসুন হেলথ পাটনার.কম এ এবার কিচু সুস্থ থাকার ‍নিয়ম জেনে নিই। এবং সব শেষে থাকবে একটি মজার টিপস। যা আপনার ব্যথা নিমিশে গায়েব করে দেবে।

>>> কোথাও একনাগারে দীঘর্ক্ষন দাড়িয়ে বা বসে থাকবেন না। একটু হাটা চলা করুন কিছু সময় পর পর অন্তত ৩০ মিনিট পর পর । কাজের ফাকে একটু বিরতি নিন।

>>> যখন কোথাও বসবেন সোজা হয়ে বসুন। আপনার ব্যক্তিত্ব ফুটে উঠবে সাথে আত্ববিশ্বাসও।

>>> হঠাৎ কোন ভারী জিনিস উত্তোলন থেকে বিরত থাকুন। নিচে থেকে কিছু তুলতে হলে ধীরে সুস্থে তুলুন। কোমড়ে যাতে চাপ না লাগে সেদিকে খেয়াল রাখুন।

>>> নিয়মিত কমপক্ষে ৩০ মিনিট হাটুন। নিয়ম করে প্রতিদিন ব্যায়াম করুন।

>>> নিজেকে সুস্থ রাখতে ব্যায়াম ও হাটা চলার বিকল্প নেই।

>>> আপনার উচ্চতা অনুযায়ী ওজন নিয়ন্ত্রনে রাখুন। নয়তো আরো অনেক সমস্যায় পড়তে পারেন।

>>>  খুব বেশি নরম বা খুব শক্ত বিছানায় ঘুমাবেন না।

>>> মহিলার হাই হিল এর পরিবতে ফ্লাট জুতা ইউজ করতে পারেন।

>>> বসার সময়ে সব সময় হাটু ভাজ করে বসবেন।

>>> সুষম ও পরিমিত পরিমাণে খাদ্য খাওয়া, খাদ্য তালিকায় চর্বি জাতীয় খাবার পরিমান কমিয়ে ফলমুল শাকসব্জী বেশী করে খাওয়া। ক্যালশিয়াম ও ভিটামিন ডি হাড় ও জোড়ার জন্য খুবই উপকারি। এগুলো বাজার থেকে কিনেও খাওয়া যেতে পারে।

কোমড় ব্যথা

(হেলথ পাটনার) এ টিপসগুলো আপনার কোমড় ব্যথা থেকে আপনাকে অনেকটাই দুরে রাখবে। এবার আসুন আপনার জন্য একটি ফলপ্রসু টিপস রয়েছে, যা থেকে সহজে মিলবে ব্যাথার উপশম।

ব্যাথা উপশমের প্রধান উপকরনটি হলো আদা। আসুন জেনে নিই এর ব্যবহার। যা যা লাগবে:

>> আদা

>> পরিস্কার পাতলা কাপড়

কিভাবে কি করবেন: প্রথমে কিছু পরিমাণ আদা নিয়ে এগুলো কুচি কুচি করে নিবেন। এবার আদা কুচি গুলো ুপরিস্কার পাতলা কাপেড় বেধে পুটলি করে নিন। এবার চুলায় গরম পানি করুন। আদার পুটলিটা চিপে রস পানিতে দিন, যতটা রস বের করা যায়। এবার গরম পানিতে পুটলি দিয়ে দিনে। কিচুক্ষণ পানিটা গরম করার পর আরেকটি কাপড় আদার পানিতে চুবিয়ে  নিয়ে ব্যথার জায়গায় সম্ভব হলে সারারাত ধরে দিয়ে রাখুন, না হলে অন্তত কয়েক ঘন্টা রাখুন। দেখবেন আপনার ব্যথা কেমন গায়েব হয়ে গেছে।

(স্বাস্থ্য) এছাড়াও  আরে কতগুলো আপনাকে দেয়া হলো যা কোমড় ব্যথা কমতে খুবই কাযর্কর:

>>> আপনি গোসলে যাওয়ার পুবে (অন্তত ৪৫ মিনিট) সরিষার তেল মালিশ করুর এবং কুসুম কুসুম গরম পানিতে গোসল করুন।

>>> দীঘদিনের ব্যথায় কুসুম গরম সেখ খুব আরাম লাগে ,এটা আপনার হট ব্যাগ দিয়ে ও দিতে পারেন।

>>> আদা চা পান করুন,,,আদা চায়ে পিঠে ব্যথা কম হয়।

>>> প্রতিদিন দুধে মধু মিশিয়ে খেলে অনেক উপকার পাওয়া যায়।

>>> নিয়মিত শারীরিক পরিশ্রম করুন। অন্তত ৩০ মিনিট হাটা চলা করুন।

 

Leave a Reply